Main Menu

মন খারাপের জন্মদিন অণিমা’র

গেলো বছরের ঠিক এই দিনে চ্যানেল আই তারকা কথন’ অনুষ্ঠানে জন্মদিন উপলক্ষ্যে উপস্থিত হয়ে দেশের বিশিষ্ট রবীন্দ্র সঙ্গীতশিল্পী অণিমা রায় বলেছিলেন, তার বাবা মা আছেন-তাতেই তিনি পরিপূর্ণ। আর এটাই তার গর্ব। কিন্তু বছর ঘুরতে ঘুরতে আরেকটা জন্মদিন আসতে না আসতেই সেই গর্বটা যেন আর থাকলোনা অণিমা’র।

গেলো বছর ২৯ ডিসেম্বর অণিমা তার বাবা কমল রায়’কে হারান। তাই এবারের জন্মদিনে যখন চ্যানেল আই থেকে তাকে তারকা কথন’-এ অংশগ্রহনের জন্য বলা হয়। তখন অণিমা প্রথম না করেছিলেন। কারণ হিসেবে অণিমা রায় বলেন,‘গেলো বছর খুব গর্ব নিয়ে বলেছিলাম-আমার বাবা মা আছেন, এটাই আমার পূর্ণতা, এটাই আমার গর্ব। কিন্তু আমার গর্বটা যেন চুর্ণ বিচুর্ণ হয়ে গেলো। যাই হোক , এটাতো আসলে ঈশ্বরের বিধান। কী-ই বা করার আছে আমাদের। তারপরও আমার যা আছে, তা নিয়েই আমি এখন পরিপূর্ণ থাকতে চাই। আমার মা আছেন, সন্তান আছে, স্বামী আছে। আছে আমার গানের ভক্ত শ্রোতা, আমার ছাত্র, ছাত্রী, আমার বিশ্ববিদ্যালয়, আমার সুর বিহার। সর্বোপরি আমার পুনশ্চ। সব মিলিয়েই এখন ভালো থাকাটা জরুরী। তাই জন্মদিনে যেন ভালো থাকতে পারি-এটাই প্রার্থনা। সবার কাছে আশীর্বাদ চাই।’

এদিকে সর্বশেষ ইউটিউবে অণিমা’র ‘বধূ নিদ নাহি আঁখি পাতে’ গানটি প্রকাশিত হয় গেলো ভালোবাসা দিবসে। গানটি লেখা ও সুর করা অতুল প্রাসাদ সেন’র। সঙ্গীতায়োজন প্রত্যুষ ব্যানার্জির। এদিকে অণিমা রায় বেশ কয়েকবছর ধরে ‘প গীতিকবির গানে স্বদেশ চেতনা’ বিষয়ে গবেষণা করছেন। বিশ্বজিৎ ঘোষ ও লীনা তাপসী খানের তত্ত্বাবধানে তিনি পিএইচপি করছেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের চেয়ারম্যান হিসেবে তিন বছর নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন শেষে ২০১৯ সালের ৯ জুলাই সেই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পান তিনি।

কলকাতার ‘রিইউনিয়ন’ সিনেমায় জয় সরকারের নতুন সঙ্গীতায়োজনে অণিমার গাওয়া ‘হৃদয়ের একুল ওকুল’ গানটি কলকাতার গানপ্রেমী শ্রোতাদের মুগ্ধ করেছে। এদিকে গতকাল অণিমা রায় বাংলাভিশনের একটি রেকর্ডিং-এর কাজে অংশ নেন। অণিমা রায়, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত বুকে রবীন্দ্রনাথ এবং রবীন্দ্র সঙ্গীতকে ধারণ করে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করতে চান।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *