Main Menu

শেঁকড়ের কিছু কথা

নীলিমা সরকার: যদি আকাশ ছুঁতে চাও তবে দাঁড়াতে শেখো মাটি ছুঁয়ে।
মাটিতেই তোমার শেঁকড় আর শেঁকড়ই তোমার প্রানশক্তি। যদি মেরুদন্ডকে শক্ত পোক্ত সুস্থ রাখতে চাও তবে শেঁকড়কে সেবা করো, কারণ শেঁকড় কেবল তোমার বেড়ে ওঠাতে, তোমার সফলতাতে,তোমার সুস্থতাতে, তোমার জন্যই তোমার খাদ্য রসে পুষ্টি খোঁজে মাটির অস্তিত্বের কোষে কোষে।
শেঁকড়কে বিচ্ছিন্ন করে আকাশ ছোঁয়ার স্বপ্ন কখনই বাস্তব রুপ পায়না।
প্রতিটি মানুষের জন্য পরিবার সবচেয়ে প্রথম, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পাঠশালা, আর বাবা মা হচ্ছে সবচেয়ে বড়,সবচেয়ে জ্ঞানী শিক্ষাগুরু। আর নিজের অস্তিত্বের সবচেয়ে শক্ত স্তম্ভ।
পৃথিবীতে প্রতিটি সফল মানুষের জীবন বৃত্তান্ত খুঁজলে অবশ্যই পাওয়া যাবে তাদের বাবা মায়ের প্রতি তাদের অকৃত্বিম সন্মান, শ্রদ্ধা,সেবা।
শেঁকড় যেমন কিলবিলিয়ে তার পরিধি বিস্তৃত করে বৃক্ষের কান্ডের সুস্থতায়, বেড়ে ওঠায়, শ্রী বৃদ্ধিতে,ফুল আর ফলে পরিপুষ্ট করতে খাদ্য পুষ্টি সংগ্রহের উদ্দেশ্যে, তেমনি প্রতিটি বাবা মায়ের প্রতিটি বলা, প্রতিধাপ চলা, প্রতিটি ভাবনা থাকে সন্তানকে কেন্দ্র করে।
প্রায় সব সন্তানেরাই তার বাবা মায়ের চেয়ে উচ্চতর ডিগ্রীধারী শিক্ষিত, কিন্তু কোনো সন্তানই কোনো বাবা মায়ের চেয়ে বেশি জ্ঞানী নয় তা আমি দায়িত্ব নিয়ে বলতে পারি।
বড় বড় ডিগ্রী নিয়ে ক্ষনিক সময়ের জন্য স্যুটেড বুটেড হয়ে যদি নিজেকে মহাজ্ঞানী ভেবে তাচ্ছিল্য করো পিতা মাতার আদেশ নিষেধ, যদি বাবা মায়ের বচন ভূষনকে লজ্জা পেয়ে অহমিকার পর্দার আড়ালে লুকিয়ে রেখে মুখ টিপে বিদ্রুপ করো সেকেলপনাকে তবে তোমার পুস্তকের শিক্ষা অচিরেই তোমাকে দিয়ে কবিতা লেখাবে আর তার বিষয় বস্তু হবে ফুটো হওয়া ছাদের ভেতর দিয়ে উঁকিমারা চাঁদ।
আজ আমি তুমি যে প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে নিজেদেরকে সভ্য আর আধুনিক ভাবছি -সেই প্লাটফর্ম তোমার আমার বাবা মায়েরাই প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে তৈরি করে দিয়েছেন।
যার যার অবস্থান থেকে প্রতিটি পিতা মাতা তার সন্তানকে তার নিজের অবস্থানের চেয়ে আরো অনেক গুন বড় আর সন্মানজনক অবস্থানে দেখতে চান আর সেজন্যই প্রতিটি বাবা মা যুদ্ধ করে চলেন একটু ভালো পরিবেশ দিতে, ভালো খাবার দিতে, ভালো শিক্ষা দিতে, ভালো সাস্থ নিশ্চিৎ করতে সর্বপরি একজন সফল মানুষ বানাতে,তার কিছুটা সন্তানের জ্ঞাতে আর অনেকটাই অজ্ঞাতে।
আমি অনেক হাই প্রোফাইল ব্যাক্তিকে দেখেছি তাদের প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ডিগ্রী না থাকা বাবা মাকে নিয়ে পাবলিক প্লেসে গর্ব করতে, আমি দেখেছি বাবা মায়ের অজ্ঞতাকেও আহ্লাদের সাথে ব্যাখ্যা করতে, আমি তাদের লজ্জিত হতে দেখিনি অনাধুনিক, নিরক্ষর বাবা মাকে জনসমক্ষে পরিচয় দিতে।
পিতা মাতার কাছ থেকে তুমি যে শিক্ষা পাবে সেই উন্নত শিক্ষা তোমাকে কোনো পুস্তক দিতে পারবেনা, কারণ পিতা মাতা হেঁটে হেটে, চলতে চলতে, হোঁচট খেতে খেতে প্রতিটি মূহুর্তে জীবনের কাছ থেকে যে শিক্ষা পেয়েছে তারই আলোকে তোমাকে শেখাবে, আর তুমিই হচ্ছো তাদের চিন্তাভাবনা চাওয়া পাওয়ার কেন্দ্র।
সুতরাং বাবার মুখ থেকে বের হওয়া প্রতিটি কথা তোমার জীবনে গুরুত্বপূর্ণ, প্রতিটি উপদেশ দেববাক্য।
বাবা মায়ের আদেশ উপদেশকে শ্রদ্ধা করো, মেনে চলো। বাবা মা তোমার শেঁকড়, তাদের যত্ন করো, তাদের সন্মান করো, তাদের মেনে চলো তবেই পাবে সফল জীবন পথের সন্ধান। শেঁকড় দুর্বল হলে বৃক্ষের ফুল ফল আশানুরূপ হয়না।
আকাশকে ছুঁতে হলে শেঁকড়কে অবিচ্ছেদ্য রাখতে হয়।শেঁকড়কে বিচ্ছিন্ন করে আকাশ ছোঁয়া যায়না।
মনে রেখো প্রতিটি পিতা মাতা একেকটি জ্ঞানের ভান্ডার, যদিও হোক নাহয় নিরক্ষর।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *