Tue. Sep 29th, 2020

Onesylhet24.com

Online News Paper

কর কমিশনারের সাথে সিলেট চেম্বার নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ও কর অঞ্চল-সিলেট এর যৌথ উদ্যোগে এক মতবিনিময় সভা বুধবার( ১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় চেম্বার কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সিলেট চেম্বারের সভাপতি আবু তাহের মোঃ শোয়েব। সভায় কর অঞ্চল-সিলেট এর কমিশনার মোঃ সাইফুল হক বলেন, ব্যবসায়ীরা অর্থনীতির চালিকাশক্তি। ব্যবসায়ীদের প্রদানকৃত রাজস্বের মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালিত হয়। তিনি বলেন, চলমান করোনা মহামারীর কারণে এ বছর আয়কর মেলা হবে না, তবে ব্যবসায়ীদের সুবিধার জন্য আমরা কর অফিসে একটি পরামর্শ কেন্দ্র স্থাপন করেছি। তিনি উল্লেখ করেন, সিলেট চেম্বার সহ সংশ্লিষ্ট সকলের দাবীর প্রেক্ষিতে সিলেটে কর ভবন স্থাপনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। তিনি কর ভবন বাস্তবায়ন ও সকল ব্যবসায়ীদেরকে করের আওতায় আনতে সিলেট চেম্বারের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি আয়কর রিটার্ন দাখিল সহজীকরণ, পাসপোর্টের মাধ্যমে ই-টিআইএন প্রদান সহ সিলেট চেম্বারের দাবী-দাওয়া সমূহ বিবেচনার আশ্বাস প্রদান করেন।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি আবু তাহের মোঃ শোয়েব বলেন, সিলেট চেম্বার অব কমার্স ব্যবসায়ীদের কল্যাণে কাজ করার পাশাপাশি সরকারের রাজস্ব প্রদানে ব্যবসায়ীদের উদ্বুদ্ধকরণে কাজ করে থাকে। সিলেটের ব্যবসায়ীরা কর প্রদানে বরাবরই আন্তরিক। এজন্যে ইতোপূর্বে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পক্ষ থেকে সিলেট চেম্বার ও ব্যবসায়ীদেরকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। তিনি কর প্রদানে ব্যবসায়ীরা যেন কোন ধরণের হয়রানির শিকার না হন সেদিকে লক্ষ্য রাখার জন্য কর কমিশনারকে অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, চলমান কর ব্যবস্থায় অডিট এবং সার্বজনীন স্বনির্ধারণী আইনের মূল উদ্দেশ্য বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। নিয়মিত কর পরিশোধকারী করদাতাদের রিটার্নগুলোকে ইচ্ছামাফিক অডিটের আওতাভুক্ত করা হচ্ছে। যার ফলে করদাতাদের আইনী খরচ ও হয়রানি দুটিই বৃদ্ধি পায়। তিনি আয়কর রিটার্ন দাখিল প্রক্রিয়া সহজীকরণ এবং করোনা মহামারী চলকালীন সময়ে কোন করদাতাকে অডিটে না ফেলার অনুরোধ জানান।

সভায় চেম্বার নেতৃবৃন্দ বলেন, সিলেট প্রবাসী অধ্যূষিত অঞ্চল হিসেবে অনেক ব্যবসায়ী ও বিনিয়োগকারীদের জাতীয় পরিচয় পত্র না থাকায় তারা ই-টিআইএন গ্রহণ করতে পারছেন না। তাই সিলেটের প্রবাসীদের জন্য পাসপোর্টের মাধ্যমে ই-টিআইএন গ্রহণের ব্যবস্থা রাখার অনুরোধ জানান। এছাড়াও কর অফিসে ব্যবসায়ীদের জন্য হেল্প ডেস্ক খোলা ও কর প্রদান প্রক্রিয়া সহজীকরণের অনুরোধ জানান।

সভায় বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত কর কমিশনার মোঃ আবু সৈয়দ সোহেল, যুগ্ম কর কমিশনার পংকজ লাল সরকার ও শাহেদ আহমদ চৌধুরী, উপ কর কমিশনার কাজল সিংহ ও মোঃ আবু সাঈদ, সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি চন্দন সাহা, সহ সভাপতি তাহমিন আহমদ, পরিচালক মোঃ মামুন কিবরিয়া সুমন, ভ্যাট বাজেট শুল্ক কর ও ট্যারিফ সাব কমিটির আহবায়ক ও পরিচালক মোঃ এমদাদ হোসেন, পিন্টু চক্রবর্তী, এহতেশামুল হক চৌধুরী, ফালাহ উদ্দিন আলী আহমদ, মোঃ আব্দুর রহমান (জামিল), মোঃ আতিক হোসেন, মোঃ নজরুল ইসলাম, আলীমুল এহছান চৌধুরী, ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী, মোঃ আমিনুজ্জামান জোয়াহির, খন্দকার ইসরার আহমদ রকী, ফখর উস সালেহীন নাহিয়ান প্রমুখ।