Sun. Mar 29th, 2020

Onesylhet24.com

Online News Paper

সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমির অনুষ্ঠানে এম.এ মুহিত লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা অপরিহার্য

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, জাতির সমৃদ্ধির জন্য লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা অপরিহার্য। দেশের শাসন ব্যবস্থা যেমন ভালো থাকতে হয়, তেমনি লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলাটাও ভালো থাকতে হয়। খেলাধুলার যতো চর্চা হবে, ততো জাতির উন্নতি হবে।
নিজের বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, শীতকাল আসলে আড়াইটার পর থেকে মনে হয় না আমি মাঠ ছাড়া ছিলাম। মাঠের আকর্ষণ অত্যন্ত ভালো। কারণ এখানে পুরোপুরি মানুষ হওয়ার একটা সুযোগ থাকে। এ জন্য নতুন প্রজন্মকে ভালো লেখাপড়ার পাশাপাশি মাঠমুখী থাকারও পরামর্শ দেন তিনি।
রবিবার শহরতলির বাদাঘাটস্থ সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার-১ সংলগ্ন মাঠে সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমি, সিলেটের ২০২০-২৩ সনের কার্যকরী পরিচালনা কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান, ফুটবল প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন একাডেমির প্রধান উপদেষ্টা ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আশফাক আহমদ, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সদস্য ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন আহমেদ সেলিম।
একাডেমি পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ইকলাল আহমদের সভাপতিত্বে, সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মো. ওলিউর রহমান ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক সেলিম আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট সিক্সার্সের চেয়ারম্যান সাহেদ মুহিত, সিলেট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা আজির উদ্দিন চেয়ারম্যান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নিজাম উদ্দিন চেয়ারম্যান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিল্লাত আহমদ চৌধুরী, জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অকিল উদ্দিন আহমদ, বাদাঘাট মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আহমদ আলী, খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তারা মিয়া, টুকেরবাজার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলতাব হোসেন, হাটখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, খাদিমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালিক, বিশিষ্ট মুরব্বী হাজী কাঞ্চন মিয়া, হাজী নুর মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির আলী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম, জাহার উদ্দিন, প্রবাসী নুর উদ্দিন, সাবেক মেম্বার মনির আলী, নুর মিয়া, আব্দুল মান্নান, কামাল আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলায়াত করেন একডেমির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বাছিত।

আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. নুরুল আমিন, সহ-সভাপতি আবুল মনসুর মো. রশীদ আহমদ, সাংবাদিক এম. রহমান ফারুক, ওয়াহিদ উদ্দিন মাছুম, তাজ উদ্দিন, মুজাহিদ আলী, আফজাল হোসেন, খালেদ আহমদ, আল-আমিন (১) , মোস্তফা উল্লাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মিজানুর রহমান মিজান, বাদশা মিয়া, আলী বাহার, শাহাদাত হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, জাকির হোসেন, জৈন উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান রুমন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কামরান আহম, আমীন আহমদ, কোষাধ্যক্ষ জামিল আহমদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জিয়াউল হক জিয়া, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রেজাউল হক মামুন, দপ্তর সম্পাদক মাছুম আহমদ সহ-দপ্তর সম্পাদক জাম্মান আহমদ রাসেল, সহ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এমরান খান সাদেক, সহ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদ আহমদ, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক দেলওয়ার হোসাইন, সহ-ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বাসির, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আল মামুন শাহীন, সহ-সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এমরান আলী তালুকদার, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রব, সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক শরিফ উদ্দিন মামুন, গণমাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক ইদ্রিছ আলী, সহ-গণমাধ্যম বিষয়ক সম্পাদক মো. মতিউর রহমান, সহ-অফিস সম্পাদক নাজিম উদ্দিন, কার্যকরী সদস্য মো. আব্দুল বাছিত, সালেহ আহমদ, আব্দুল করিম বাচ্চু, জাবের আহমদ, খসরুল ইসলাম, কুরবান আহমদ, আল আমিন (২), এমরান হোসেন ইমন, মো. শাহজাহান, আলেক আহমদ, ফয়সল আহমদ টিপু, সদরুল আমিন, জাহেদ আহমদ, আল-আমিন (৩), আল-আমিন (৪), ছিদ্দিকুর রহমান, মাহবুবুল আলম, মাহমুদুল হাসান সিয়াম, রাকিবুল ইসলাম সিমন, সাদিকুর রহমান (২), রাজু আহমেদ, কামরান উদ্দিন অপু, রাকিব আলী, শহিদ আহমদ জুয়েল, ছোয়াব আলী, কে এম রব্বানী, এমদাদুর রহমান, আসিফ আহমদ, মারুফ আহমদ, কবির আহমদ জুয়েল, নজরুল ইসলাম, উস্তার আলী, সুলতান আহমদ, আজিজুল ইসলাম মিশাত, কুতুব উদ্দিন জুয়েল।

অনুষ্ঠান শেষে সদর উপজেলা স্পোর্টস একাডেমি ফুটবল দল এবং সিলেট ইউনাইটেড ক্লাবের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। খেলা ২-২ গোলে ড্র হয়। খেলায় রেফারির দায়িত্ব পালন করেন একাডেমির কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য, বাফুফের তালিকাভুক্ত রেফারি আব্দুল বাছিত। সহকারী হিসেবে ছিলেন রুস্তম আলী ও মিন্টু আহমদ। ধারাবিবরণী প্রদান করেন ধারাভাষ্যকার আনোয়ার হোসেন ও রেজাউল হক মামুন।